বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ০৪:০০ পূর্বাহ্ন
বিশেষ ঘোষণা :
সময়ের সাথে সাথে প্রযুক্তিও পাল্টে যাচ্ছে ! তাই বদলাতে হচ্ছে আমাদেরও। আপনি এখন দেখতে পাচ্ছেন সিটি নিউজ পোর্টালের আপডেট ভার্সন। নতুন সাইটে আপনি আরো দ্রুততার সাথে ঝপটপ খবর পড়ে নিতে পারবেন। ২০১৬ সাল থেকে এ পর্যন্ত আমরা ছয় বার সাইট আপডেট করেছি। অনিচ্ছাকৃত ত্রুটির ক্ষমা প্রার্থণা: ওয়েব সাইটটি আপডেট করার সময় পুরনো সাইটের কমবেশি ১০ শতাংশ খবর ”ডাটালস” এর কারণে কোনও পুরনো লিঙ্ক নাও খুলতে পারে। এটা একান্তই টেকনিক্যাল গ্রাউন্ড। যে কারণে সিটি নিউজের সম্পাদকীয় বিভাগ আন্তরিকভাবে ক্ষমা প্রার্থী। সঙ্গে থাকুন।

না.গঞ্জে ভাষাসৈনিক ধীরেন্দ্রনাথ দত্তের স্মরণ সভা ও প্রার্থনা অনুষ্ঠিত

সিটি নিউজ / ৭২ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪

নারায়গঞ্জে ভাষাসৈনিক শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত স্মরণে আলোচনা সভা ও বিশেষ প্রার্থণা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার (২৫ ফেব্রুয়ারী) রাত সাড়ে ৭টায় মহানগরের ২নং রেলগেইটের কাজী প্লাজায় ঐক্য পরিষদের কার্যালয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ ও যুব ঐক্য পরিষদের আয়োজনে এ আলোচনা সভা ও বিশেষ প্রার্থনা অনুষ্ঠিত হয়।

নারায়ণগঞ্জ মহানগর হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সহ সভাপতি বিপ্লব ঘোষ মনার সভাপতিত্বে ও মহানগরের সাংগঠনিক সম্পাদক অরুন দেবনাথ’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক নিমাই চন্দ্র দে।
এ সময় বক্তব্য রাখেন নারায়ণগঞ্জ জেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি প্রদীপ কুমার দাস, জেলার কোষাধ্যক্ষ শহীদ পরিবারের সন্তান পিন্টু রায়, জেলার নেতা গোবিন্দ চন্দ্র দাস, অর্জুন দাস,মহানগর ঐক্য পরিষদের সহ সাধারণ সম্পাদক প্রশান্ত কুমার সাহা,অজয় সুত্রধর, সুব্রত কুমার সাহা, কার্তিক সূত্রধর, ১৪ নং ওয়ার্ড ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রঞ্জিত দাস,১৫ নং ওয়ার্ড ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ভোলানাথ পোদ্দার, জেলা যুব ঐক্য পরিষদের সভাপতি আনন্দ কুমার সেরাওগী সুমন, সাধারণ সম্পাদক ভজন চন্দ্র দাস,মহানগর যুব ঐক্য পরিষদের সভাপতি এড. অঞ্জন দাস,সাধারণ সম্পাদক রিপন কর্মকার, বন্দর যুব ঐক্য পরিষদের সভাপতি তুলশী ঘোষ ও সাধারণ সম্পাদক জিতু দাসসহ নেতৃবৃন্দ।

 

আরও পড়ুন >>> বড়দিন: না.গঞ্জে ঐক্য পরিষদের শুভেচ্ছা বিনিময়

 

নেতৃবৃন্দ তাদের বক্তব্যে বলেন,পাকিস্তান স্বাধীন হয় ১৯৪৭ খ্রীষ্টাব্দের ১৪ই আগস্ট। মাত্র ছয় মাসের মাথায় করাচিতে ২৩শে ফেব্রুয়ারি ১৯৪৮ খ্রীষ্টাব্দে ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলিতে যিনি স্পষ্ট ভাষায় দাবি তুলেন ‘বাংলাকে রাষ্ট্রভাষা করা হোক’ সেই মানুষটির নাম ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত।
ধীরেন্দ্রনাথ দত্তই সর্বপ্রথম বাংলা ভাষাকে রাষ্ট্রভাষা করার দাবি তুলে ধরে ছিলেন। ধীরেন্দ্রনাথ দত্তের সেই দাবি পাকিস্তান পার্লামেন্টে প্রত্যাখ্যাত হয়। তারপরই ভাষা আন্দোলনের সূচনা ঘটে। ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত পাকিস্তান পার্লামেন্টে দাঁড়িয়ে বলেছিলেন, ‘পূর্ব পাকিস্তানের ৬ কোটি ৯০ লাখ মানুষের মধ্যে ৪ কোটি ৪০ লাখ মানুষ বাংলায় কথা বলে, তাই আমার বিবেচনায় বাংলা হওয়া উচিত রাষ্ট্রভাষা।’ তার এই বক্তব্যকে জিন্নাহর ‘উর্দু হবে রাষ্ট্রভাষা’ ঘোষণার প্রথম আনুষ্ঠানিক প্রতিবাদ বলা যায়। সুতরাং তাঁকে ‘ভাষা আন্দোলনের জনক’ বললেও অত্যুক্তি হবে না। আজ আমরা উনাকে মনে রাখি না। অথচ পাকিস্তানের শাসকেরা তাঁকে মনে রেখেছিল!

 

আরও পড়ুন >>> না.গঞ্জে ঐক্য পরিষদের শীতবস্ত্র বিতরণ

 

ধীরেন্দ্রনাথ দত্তকে ১৯৭১ খ্রীষ্টাব্দের ২৯শে মার্চ পাক-আর্মিরা ধরে নিয়ে ময়নামতি ক্যান্টনমেন্টে নিষ্ঠুরভাবে হত্যা করে। ৮৪ বছর বয়সী এ মানুষটিকে হাত-পা ভেঙ্গে পঙ্গু এবং দুই চোখে কলম ঢুকিয়ে অন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। মৃত্যুর পর গায়ে থুতু দেয়ার জন্য তাঁর মরদেহ বাইরে রেখে দেওয়া হয়েছিল। আমরা শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত সহ সকল ভাষা শহীদের কৃতজ্ঞচিত্তে স্মরণ করছি।
অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন মহানগর ঐক্য পরিষদের প্রচার সম্পাদক জয়ন্ত কুমার সাহা পিংকু, প্রকাশনা সম্পাদক সত্যরঞ্জন দেবনাথ,মহানগরের নেতা অজিত ঘোষ,বিপুল পোদ্দার, নারায়ণ বর্মন, মিঠুন দত্ত বিল্লু,প্রণয় সিংহ,কৃষ্ণপদ মজুমদার,পংকজ রায়,রঞ্জিত দাস, ভুবন বর্মন, সুজন দাস ও সুমন সাহাসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।
আলোচনা সভার পর ভাষাসৈনিক শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত স্মরণে এবং নারায়ণগঞ্জ জেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের প্রতিষ্ঠাকালীন সাবেক সদস্য শংকর চন্দ্র ঘোষের আত্মার শান্তি কামনায় এক বিশেষ প্রার্থনা অনুষ্ঠিত হয়। প্রার্থনা পরিচালনা করেন ১৪ নং ওয়ার্ড হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রঞ্জিত দাস।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

বিভাগীয় সংবাদ এক ক্লিকেই