বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ১০:৩৩ পূর্বাহ্ন
বিশেষ ঘোষণা :
সময়ের সাথে সাথে প্রযুক্তিও পাল্টে যাচ্ছে ! তাই বদলাতে হচ্ছে আমাদেরও। আপনি এখন দেখতে পাচ্ছেন সিটি নিউজ পোর্টালের আপডেট ভার্সন। নতুন সাইটে আপনি আরো দ্রুততার সাথে ঝপটপ খবর পড়ে নিতে পারবেন। ২০১৬ সাল থেকে এ পর্যন্ত আমরা ছয় বার সাইট আপডেট করেছি। অনিচ্ছাকৃত ত্রুটির ক্ষমা প্রার্থণা: ওয়েব সাইটটি আপডেট করার সময় পুরনো সাইটের কমবেশি ১০ শতাংশ খবর ”ডাটালস” এর কারণে কোনও পুরনো লিঙ্ক নাও খুলতে পারে। এটা একান্তই টেকনিক্যাল গ্রাউন্ড। যে কারণে সিটি নিউজের সম্পাদকীয় বিভাগ আন্তরিকভাবে ক্ষমা প্রার্থী। সঙ্গে থাকুন।

না.গঞ্জে বাজার মনিটরিংয়ে প্রশাসন: ডাল ব্যবসায়িকে লাখ টাকা জরিমানা

সিটি নিউজ / ৬০ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : বুধবার, ১৩ মার্চ, ২০২৪

পবিত্র মাহে রমজান উপলক্ষে নারায়ণগঞ্জে দ্রব্য মূল্যের উর্ধগতি নিয়ন্ত্রণে পাইকারি ও খুচরা বাজার মনিটরিং করেছে জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসন। বুধবার (১৩ মার্চ) দুপুরে নগরীর অন্যতম কাচাবাজার দিগু বাবু বাজার ও পাইকারী বাজার নিতাইগঞ্জে এই মনিটরিং করা হয়।
বাজার মনিটরিংয়ের সময় মুদি দোকান, কাঁচা বাজার, মাছের বাজার, মাংসের বাজারে ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বলেন জেলা প্রশাসক। এসময় দোকানের ভিতরে প্রবেশ করে চাল, ডাল, খেজুরসহ বিভিন্ন নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের সঠিক দাম যাচাই বাছাই করেন।
কিছু দোকানদার পাইকারি ডাল কেনার রশিদ দেখাতে না পারায় তাদের দীর্ঘ সময় জিজ্ঞাসাবাদ শেষে সতর্ক করা হয়। এছাড়া প্রতিটি দোকানে পণ্যের মূল্য তালিকা ঝুলানোর জন্য নির্দেশনা দেয়া হয়।
মনিটরিংয়ের সময় নিতাইগঞ্জে অতিরিক্ত মূল্যে খেসারীর ডাল বিক্রি করার অপরাধে কৃষি বিপণন আইনে বিকাশ দেবনাথের মালিকানাধীন মেসার্স কুমিল্লা ট্রেডার্সকে এক লক্ষ টাকা জরিমানা করা হয়।
বাজার মনিটরিংয়ের সময় আরও উপস্থিত ছিলেন, সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসার দেদারুল ইসলাম, জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর নারায়ণগঞ্জ জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. সেলিমুজ্জামান, ক্যাব, নারায়ণগঞ্জের যুগ্ম সম্পাদক বিল্লাল হোসেন রবিনসহ জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ ও ব্যবসায়ি নেতৃবৃন্দ।
মনিটরিং শেষে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মাহমুদুল হক বলেন, আমরা ব্যবসায়ীদের সাথে বৈঠক করেছি, যাতে রমজানে দ্রব্যমূল্য সাধারণ মানুষের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে থাকে। সেই ধারাবাহিকতায় আজকের এই বাজার মনিটরিং। কাচাবাজার, মুরগী, মাছ ও গরুর মাংসের বাজারেও গিয়েছিলাম। দিগু বাবুর বাজারে গরুর মাংসের দোকানে ৭৮০ টাকায় মাংস বিক্রি হচ্ছিলো, আমরা এটাকে ৭৫০ টাকায় বিক্রি করতে বলেছি।
তিনি আরও বলেন, আমরা পাইকারী ও খুচরা ব্যবসায়ীদের পণ্যের রশিদ এবং পন্য তালিকা দোকানে ঝুলানো কিনা দেখছি। আমরা বাজারে আসলে কিছু দোকানদার পালিয়ে যায়, তাদের হয়তো কোন অনিয়ম থাকতে পারে।
আমাদের প্রশাসনের ছায়া তদন্ত থাকবে, এছাড়া পুলিশের গোয়েন্দা সংস্থারা থাকবে। সবাই তদন্ত করে দেখছে কেউ বাজারে পন্যের দাম বৃদ্ধি করে কিনা। কোন ব্যবসায়ী যাতে অসাধু উদ্দেশ্যে মূল্য বৃদ্ধি না করতে পারে সেই বিষয়ে আমাদের মনিটরিং অব্যাহত থাকবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

বিভাগীয় সংবাদ এক ক্লিকেই